ঢাকাSunday , 30 April 2023
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন ও ন্যায়
  4. খেলা ধুলা
  5. জীবন যাপন
  6. টাকা বা ডলারের মান হ্রাস বা বৃদ্ধি
  7. ট্রাফিক সার্জেন্টে
  8. ধর্মীয় রীতিনীতি
  9. পার্ক
  10. প্রশাসন
  11. বিনোদন
  12. বিলাসী
  13. বিসিএস
  14. মামলা
  15. মোবাইল ফোন কোম্পনি
আজকের সর্বশেষ সব খবর

বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী নাহিদ এসএসসি পরীক্ষার্থী

Link Copied!

অপরীক্ষার কক্ষে অন্য পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে বসে একমনে লিখছিল নাহিদ হাসান (১৭)। দেখে বোঝার উপায় নেই যে সে বাক‌ ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী। অথচ জন্ম থেকে পাওয়া এই প্রতিবন্ধিতা জয় করেই এগিয়ে চলেছে এই কিশোর। এবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় (এসএসসি) শেরপুর শহরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু বকর মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয় উপকেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছে সে। পরীক্ষার হলে কারও সাহায্যও নিচ্ছে না।

#New_Classic_Event_Management

নাহিদ হাসান শেরপুর সদর উপজেলার চরমোচারিয়া ইউনিয়নের মুন্সিরচর গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে। বাক ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী ছেলেকে ছয় বছর বয়সে স্থানীয় মুন্সিরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি করিয়ে দেন মা-বাবা।

এরপর ২০১৮ সালে মুন্সিরচর মতিজাহান উচ্চবিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হয় নাহিদ। এ বছর ওই বিদ্যালয় থেকেই মানবিক বিভাগে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে সে।

মকবুল হোসেন মুন্সিরচর আব্দুল গনি ইসলামি কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক। ছেলের পড়াশোনা করানোর ক্ষেত্রে স্ত্রী নাজমিন রেখার অবদানই বেশি বলে মনে করেন তিনি। মকবুল হোসেন বলেন, ‘তিন ছেলে-মেয়ের মধ্যে নাহিদ বড়। জন্ম থেকে সে বাক‌ ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী। রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা করিয়েও কোনো লাভ হয়নি। পরে তাকে স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়ে দিই। নাহিদের মা এসএসসি পাস। সে ছেলেকে ইশারায় পড়ালেখা করিয়েছে। ছেলেকে যাতে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারি, প্রতিবন্ধী বলে সে যেন সমাজের বোঝা না হয়, সে জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।’

প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী হিসেবে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ২০ মিনিট সময় বেশি পায় নাহিদ। আজ রোববার বাংলা প্রথমপত্র বিষয়ের পরীক্ষা চলার সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু বকর মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয় উপকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, মনোযোগ দিয়ে পরীক্ষার খাতায় প্রশ্নের উত্তর লিখছে নাহিদ। পরীক্ষা কক্ষে দায়িত্ব পালনরত শিক্ষক মো. মাছুম কয়েকবার তার খোঁজখবর নেন।

পরীক্ষা শেষে নাহিদ হাসানের সহপাঠী আরিফুল ইসলাম বলে, ‘লেখাপড়ার প্রতি ভীষণ আগ্রহ নাহিদের। সে নিয়মিতভাবে স্কুলে উপস্থিত থাকত। শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকেরা ইশারায় তাকে (নাহিদ) পড়া বুঝিয়ে দিতেন। নাহিদ মনোযোগ দিয়ে তা বোঝার চেষ্টা করত। তার মনের জোর অনেক। সে আমাদের ভালো বন্ধু এবং খেলাধুলাতেও সে বেশ পারদর্শী।’

একটি কাগজে ‘পরীক্ষার ফল কেমন হবে এবং বড় হয়ে কী হতে চাও’, লিখে হাতে দিলে নাহিদ পাল্টা লিখে দেয়, ভালো ফলের আশা তার। পড়ালেখা শিখে সরকারি কর্মকর্তা হতে চায়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু বকর মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম মোখলেছুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, অনেক ভালো ছাত্রছাত্রী লেখাপড়া বাদ দিয়ে পথভ্রষ্ট হয়ে পড়ে। অথচ নাহিদ বাক ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী হয়েও শুধু মনের জোরে পড়ালেখা চালিয়ে যাচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে এ ধরনের শিক্ষার্থীদের আরও সহযোগিতা করা হলে ভবিষ্যতে তারা দেশ ও সমাজের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Shares

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।

প্রযুক্তি সহায়তায়: মুশান্না কম্পিউটার আইটি